ডিআইআইটিতে বিবিএ

  • Date : Aug. 28, 2021

বর্তমানে বিবিএ পড়ার প্রতি শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের আগ্রহ উত্তরোত্তর বৃদ্ধি পাচ্ছে। ব্যবসায়িক সম্পর্ক কীভাবে আরও উন্নত করা যায়, কেমন করে ব্যবসা পরিচালিত হয়, কীভাবে একটা নতুন ব্যবসা শুরু হতে পারে- এসব বিষয় থেকে শুরু করে করপোরেট জগতের খুঁটিনাটি জানা যায় ব্যবসায় প্রশাসন পড়ে। ব্যবসায় শিক্ষার বিভিন্ন বিভাগ যেমন- বিপণন, হিসাবরক্ষণ, অর্থনীতি, মুদ্রানীতি, বিনিয়োগের আর্থিক সংস্থান, সাপ্লাই চেইন, আন্তর্জাতিক ব্যবসা ও ব্যবস্থাপনা সম্পর্কে একজন বিবিএর শিক্ষার্থী সূক্ষ্ণভাবে জানতে পারেন। অংশীদারদের সঙ্গে কীভাবে কাজ করতে হয়, সাপল্গাই চেইনের মাধ্যমে কিংবা কীভাবে পণ্য সরবরাহ করা হয়, এসবই একজন বিবিএর শিক্ষার্থীকে জানতে হয়।

আর ব্যবসা করতে গেলে এ সম্পর্কিত বিষয়গুলো ছাড়াও আরও নানা বিষয়ে জ্ঞান রাখা জরুরি। এসব দিক সামনে রেখে যাত্রা শুরু করেছিল এই ড্যাফোডিল পরিবারের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ডিআইআইটি। জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে বিবিএ প্রোগ্রাম ডিআইআইটির প্রথম প্রফেশনাল অনার্স প্রোগ্রাম। ইতোমধ্যে এই বিভাগ থেকে ১৬টি ব্যাচে প্রায় এক হাজার ৫০০ ছাত্রছাত্রী সাফল্যের সঙ্গে বিবিএ ডিগ্রি সম্পন্ন করেছেন। এসব শিক্ষার্থীর মধ্যে অনেকেই বিভিন্ন ব্যাংক, বীমা, লিজিং প্রতিষ্ঠান, রিয়েল এস্টেট, মাল্টিন্যাশনাল কোম্পানি, সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে সুনামের সঙ্গে কাজ করছেন। জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে অনুষ্ঠিত বিভিন্ন সেমিস্টারের পরীক্ষায় ডিআইআইটির ছাত্রছাত্রীরা সাফল্যের সঙ্গে মেধা তালিকায় অবস্থান করে আসছেন। এই বিভাগের শিক্ষার্থীদের যুগোপযোগী শিক্ষা ও বাস্তবধর্মী জ্ঞান অর্জনের জন্য প্রোগ্রামটি ইন্ডাস্ট্রি ভিজিট, কর্মশালা, সেমিনার, ক্যাম্প ফর লাইফ, সভা, স্টাডি ট্যুর, জব ফেস্টিভাল, ক্যারিয়ার আড্ডা এবং বিভিন্ন বিষয়ের ওপর সার্টিফিকেট কোর্স, ল্যাপটপ ডিস্ট্রিবিউশন সেরিমনি ইত্যাদির আয়োজন করে থাকে। এ ছাড়া শিক্ষার্থীদের কর্মক্ষেত্রে বাস্তবধর্মী জ্ঞান অর্জনের জন্য চতুর্থ বর্ষের অষ্টম সেমিস্টারের শেষে বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে তিন মাসের জন্য ইন্টার্নশিপের ব্যবস্থা করা হয়, যাতে ছাত্রছাত্রীরা করপোরেট জীবন সম্পর্কে ব্যবহারিক জ্ঞান লাভ করতে পারেন। পুরোনো এবং নতুন ছাত্রছাত্রীর মধ্যে সংযোগ স্থাপন এবং কর্মক্ষেত্রে সহযোগিতার লক্ষ্যে প্রায় এক হাজার ৫০০ সদস্যের ডিআইআইটি অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশন গঠন করা হয়েছে। বৈশ্বিক মহামারি করোনার ছোবলে যখন সব শিক্ষার্থীর শিক্ষাজীবন স্থবির হয়ে পড়েছিল, সেই সময়ও ডিআইআইটি শুরু থেকেই ছাত্রছাত্রীদের জন্য অনলাইন ক্লাস, অনলাইন কুইজ, ভিডিও প্রেজেন্টেশন, অনলাইন আড্ডাসহ বিভিন্ন কর্মকাণ্ড অব্যাহত রেখেছিল।

ডিআইআইটির অধ্যক্ষ ড. মোহাম্মদ সাখাওয়াত হোসেন বলেন, শিক্ষকমণ্ডলী, অভিভাবক ও শিক্ষার্থীদের সম্মিলিত প্রচেষ্টাই প্রতিষ্ঠানটির সফলতার মূল কারণ। বিবিএ প্রোগ্রামের সফলতার পেছনে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে বিভাগের বিভাগীয় প্রধানসহ সব শিক্ষক।

যোগাযোগ: ৬৪/৪ লেক সার্কাস, কলাবাগান, ডলফিন গলি, ঢাকা।