15th August -The National Mourning day, Discussion and Distribution of Educational Instruments-2022

  • Date : Aug. 31, 2022

১৫ ই আগস্ট- জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে 22 শে আগস্ট -২০২২ ইং  তারিখে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় -এর অধিভুক্ত প্রতিষ্ঠান ড্যাফোডিল  ইনস্টিটিউট অব আইটি (DIIT) এক বিশেষ  আলোচনা সভা ও শিক্ষা উপকরণ বিতরণী  অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির আসন অলংকৃত করেন গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি, এমপি। ঢাকার সোবহানবাগে  অবস্থিত ড্যাফোডিল এডুকেশন নেটওয়ার্ক (DEN) ড্যাফোডিল টাওয়ারের "৭১মিলনায়তন"- এ অনুষ্ঠানটির  আয়োজন করা হয়।

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়, বাংলাদেশ- এর উপাচার্য প্রফেসর ড. মশিউর রহমান অনুষ্ঠানে সম্মানিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ডিআইআইটি -এর গভর্নিং বোর্ডের চেয়ারম্যান প্রফেসর ড. এস এম  মাহফুজুর রহমান। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন ড্যাফোডিল পরিবারের চেয়ারম্যান ও ডিআইআইটি -এর প্রতিষ্ঠাতা ড. মোঃ সবুর খান।  অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য প্রদান করেন ডিআইআইটি -এর অধ্যক্ষ প্রফেসর ড. মোঃ সাখাওয়াত হোসেন। এছাড়াও ডিআইআইটি -এর কর্মকর্তা-কর্মচারীবৃন্দ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।

অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন ড্যাফোডিল ইন্সটিটিউট অব আইটি’র অধ্যক্ষ প্রফেসর ড. মোঃ সাখাওয়াত হোসেন

প্রধান অতিথির বক্তব্যে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, বঙ্গবন্ধু  বৈষম্যহীন, শোষণমুক্ত অসাম্প্রদায়িক রাস্ট্র গঠন করতে চেয়েছিলেন বলেই ৭১ এর পরাজিত শক্তিরাই শেখ মুজিবুর রহমানকে হত্যা করে।

তিনি আরো বলেন, অনেকে বলেন রাজধানীতে শিক্ষার মান এক রকম, গ্রামে আরেক রকম। তাই যদি হতো তবে বিভিন্ন অলিম্পিয়ার্ডে শুধু ঢাকার শিক্ষার্থীরাই ভালো ফল করত। কিন্তু আমরা দেখছি এসব প্রতিযোগিতায় খুলনা, সিলেট ও জেলা পর্যায়ের শিক্ষার্থীরাও ভালো করছে।

তিনি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সমূহকে বিশ্ব র‌্যাংকিং এর মানদন্ডগুলির প্রতি বিশেষ মনোযোগী হওয়ার আহ্বান জানান।অনুষ্ঠানে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. মশিউর রহমান বলেন, আজ আমরা যেখানে অবস্থান করছি এর জন্য বঙ্গবন্ধুকে ১২ বছর কারাগারে থাকতে হয়েছে।তিনি আরো বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে হৃদয়ে ধারন করে আমরা একটি মানবিক, আদর্শভিত্তিক কল্যাণ রাস্ট্র গঠন করতে চাই যেখানে সমতাভিত্তিক সমাজ তৈরী হবে।

ড্যাফোডিল ইন্সটিটিউট অব আইটির প্রতিষ্ঠাতা ও ড্যাফোডিল পরিবারের চেয়ারম্যান ড. মোঃ সবুর খান তার বক্তব্যে ১৯৯৮ সালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে কম্পিউটারের উপর থেকে ভ্যাট টেক্স প্রত্যাহারের দূরদর্শী সিদ্ধান্তের জন্য ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, সেদিনের সিদ্ধান্তই আজ প্রধানমন্ত্রীকে ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়তে সহায়তা করেছে।তিনি শিক্ষার্থীদের ল্যাপটপের সর্বোচ্চ ব্যবহার নিশ্চিত করে আন্তর্জাতিক চাকরি বাজারের উপযোগী করে নিজেকে গড়ে তোলার আহ্বান জানান।

এছাড়া বক্তব্যে রাখেন ড্যাফোডিল ফ্যামিলির সি ই ও মোঃ নুরুজ্জামান, চেয়ারম্যান গভর্নিংবডি (ডি আই আই টি) প্রফেসর ড. এস. এম. মাহফুজুর রহমান

অনুষ্ঠান শেষে ড্যাফোডিল ইন্সটিটিউট অব আইটির মেধাবী শিক্ষার্থীদের মাঝে ল্যাপটপ সহ শিক্ষা উপকরণ বিতরণ করেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি।

ডি আই আই টি - জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় ,বাংলাদেশ -এর অধিভুক্ত সর্বপ্রথম ও একমাত্র শিক্ষা প্রতিষ্ঠান যা তার  শিক্ষার্থীদের মাঝে ২০১৪ সাল থেকে প্রতিবছর বিনামূল্যে ল্যাপটপ বিতরণ করে আসছে। উচ্চশিক্ষার পথে একটি গুরুত্বপূর্ণ শিক্ষা উপকরণ হিসেবে DIIT -এ যাবৎ ৫৭১ টির অধিক (প্রায় দুই কোটি টাকা) সমমূল্যের ল্যাপটপ বিতরণ করেছে।

ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্যে  যুগোপযোগী শিক্ষা ব্যবস্থাকে ত্বরান্বিত করে শিক্ষার্থীদের গ্রন্থগত শিক্ষার পাশাপাশি প্রায়োগিক ও ব্যবহারিক শিক্ষায়  সমানভাবে অগ্রসর করা এবং শিক্ষার্থীদের হাতের নাগালে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তির সুফল পৌছে দিতে DIIT প্রতিবছর বিনামূল্যে ল্যাপটপ বিতরণ কর্মসূচি পালন করে আসছে।

বর্তমান সময়ে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তির ব্যাপক উন্নয়নের ফলে শিক্ষার্থীগণ নিয়মিত শিক্ষা কার্যক্রমের (যেমন- অ্যাসাইনমেন্ট, প্রেজেন্টেশন, প্রোগ্রামিং, রিপোর্ট রাইটিং, প্রজেক্ট ডেভলপমেন্ট, ইত্যাদি) পাশাপাশি অনলাইন কিংবা অফলাইনে দেশ-বিদেশের বিভিন্ন কার্যক্রম যেমন ফ্রিল্যান্সিং, গ্রাফিক্স ডিজাইন, ওয়েব ডেভলপমেন্ট, আর্টিকেল রাইটিং, ইত্যাদির সাথে যুক্ত রয়েছে।  ব্যক্তিগত দক্ষতা বৃদ্ধির পাশাপাশি বহু মেধাবী অসচ্ছল শিক্ষার্থীর অন্যতম আয়ের উৎস হিসেবে এ ল্যাপটপ বহুল ব্যবহৃত হয়ে আসছে।

Recent Post